img
Home / দেশ ও দশ কথা / বিশুর রক্তাক্ত শার্ট, ঢেকে দেয় সবুজের বুকের লালকে

বিশুর রক্তাক্ত শার্ট, ঢেকে দেয় সবুজের বুকের লালকে

/
/

বিচারপতি তোমার বিচার করবে কারা, আজ জেগেছে এই জনতা। কোন এক সময় কোনো এক গীতিকার সুর বেধেছে ঠিক এভাবেই, জাতি জেগেছে, দেশকে মুক্ত করেছে, বঙ্গবন্ধুকে মুক্ত করেছে, ভাসানির ডাকে “জেলের তালা ভাংবো, শেখ মুজিবকে আনবো” সেই যুগ আজ অনেক পুরনো আর বাসী হয়ে গিয়েছে বঙবাসীর কাছে। বেশ কিছু দিন আগের রাজধানীতে প্রকাশ্য দিবালোকে বিশ্বজিত নামের এক নিরীহ দর্জিকে হায়েনার মতো কুপিয়ে মেরেছিলো একদল জানোয়ার, ভাগ্যিস সেখানে মিডিয়ার ক্যামেরা সচল ছিলো, তাদের কিছু সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়,আবার কেউ দেশে থেকেও পলাতক। তাদের কেউ কেউ এই মহান শোকের মাসে বঙ্গবন্ধুর ছবির পাশে নিজের ক্যালানো ছবির ট্যাগ করে বিলবোর্ড টাঙায়। তখন লজ্জায় মাথা হেট হয়ে যায়। এই মাসেই ঘাতকেরা হত্যা করে বন্ধুকে, লজ্জা লাগে সেই মাসেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে জলাঞ্জলি দিয়ে বিচারকের রায়ে হত্যাকারীর ফাসি হয়ে যায় খালাস কিংবা জাবতজীবন কারাদন্ড। ছেচল্লিশ বছর আগের হত্যাকান্ডের বিচার করতে পারি আমরা,পারি না শুধু আজকের বিচারগুলো করতে, বিচারকের বিচার করতে। যখন ফাসির রায়টা হয়ে গিয়েছিলো,সবাই ভেবেছিলো আইনের শাসন বুঝি হয়েই গেলো। কিন্তু বছর গড়াতেই যখন রিভিউর রায় এলো তখন সত্যি মনে হচ্ছে আইনের শাসন এদেশে রুপকথার মতন।ফাসি থেকে যাবজ্জিবন কারাদন্ড,যে পালাতক তার ই ফাসির রায়, আহা ফারুকি ভাইয়ের ৪২০ নাটকও হেরে যাবে এই নাটকের দামামার কাছে। বিশ্বজগতে ঠাই পেলো বিশ্বজিৎ এর খুনিদের।সময় এলে এরা দাত কেলিয়ে হাসবে, আর বিশ্বজিতেরা বিশ্বের বুকে,বিচারের মুখে আজীবন থুথু মেরে যাবে। আমরা ভুলে যাবো বিশুকে,হয়তো বছর কয়েক পর রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চেয়ে পার পেয়ে যাবে বাকীরা। সেদিন ভিডিও ক্লিপসটা ও খুজে পাওয়া যাবে না আর্কাইভসে।কিন্তু বিশুর মায়ের আহাজারি কোনো দিন গুছবে না, মায়ের বুক খালি করা,নাড়ির ছেড়া ধন বিশু কোনোদিন ফিরবে না। তবুও এই মাটি বিশুর খুনিদের কখনোই ক্ষমা করবে না। সেই দায় ছুয়ে যাক বিচারকের,খুনিদের পরিবারে। সেদিন তারাও একটা ন্যায় বিচারের অপেক্ষায় থাকবে,কিন্ত যে প্রহসনের বিচার তারা চালু করে গিয়েছে,সেই প্রহসন বারবার ফিরে আসবে তাদের কপালেই।

Comments Below

comments

  • Facebook
  • Twitter
  • Google+
  • Pinterest
  • stumbleupon